Analysis

ভারতে বাম আন্দোলনের অন্যতম পুরোধা মুজফ্ফর আহমদের ১৩১ জন্মদিনে আজও প্রাসঙ্গিক : বিমান বসু

মহাজাতি সদনে সিপিআইএমের রাজ্য সম্পাদক সূর্য্য কান্ত মিশ্র বর্তমান অবস্থায় রুখে দাঁড়াবার ডাক দিলেন।সময় হয়েছে লড়াইয়ের ডাক দিয়েছি সকলকে বললেন সেলিম, নামতে হবে সকলকে। নাতো বড় দেরি হয়ে যাবে !

এক দিকে আজকে যখন জম্মু ও কাশ্মীর মানুষের অধিকার তেমন জাতি ভেদে বিভক্ত হতে চলেছে দেশ। যুবকের চাকরি নেই , কর্মের নিশ্চয়তা নেই , ব্যাঙ্কের সুদ গেছে কমে, বাজার মূল্য যখন আকাশ ছোয়া , দুর্নীতি যখন সব স্তরে সেই সময় আজকের এই আলোচনা বড় প্রাসঙ্গিক। কাকাবাবুর ১৩১ তম জন্মদিনে আলোচনা চক্র অনুষ্ঠিত হল মহাজাতি সদনে। বিমান বসুর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখলেন সিপিআইএম দলের রাজ্য সম্পাদক সূর্য্য কান্ত মিশ্র , প্রাত্তন লোকসভার সদস্য সেলিম সহ প্রমুখ।।

এক দিকে যখন মহাজাতি সদনের সভা আর কিছুটা সময় আগে দিল্লিতে পাস্ হয়ে গেল জম্মু কাশ্মীরের গুরুত্ব পূর্ণ সিদ্ধান্ত। সাধারণ মানুষের গনত্রান্তিক অধিকারে হস্তক্ষেপ হচ্ছে বলে বিরোধীরা যখন রাজ্যসভা উত্তাল করছেনা তখন কলকাতার রাজপথে নামলো প্রতিবাদ মিছিল , শেষ হল মহাজাতিসদনে।

তবে সুর কাটলো সভায় রবিন দেব , কারণ এক প্রবীণ ব্যক্তি তার সঞ্চয়ের থেকে ১০০০ টাকা পার্টি তহবিলে দান করবার ইচ্ছা প্রকাশ করে মঞ্চে যাবার সময় রবিন বাবু বলে ওঠেন” তাড়াতাড়ি আসুন তাড়াতাড়ি – আপনাকে তো বললাম কাছেই বসুন , বেশ কিছুটা বিরক্তির শুরে “, কিন্তু প্রায় ৮৫ উর্ধ মানুষটি না পারছেন ভালোকরে হাটতে না চোখে দেখেন ভালো। কিন্তু প্রবল ইচ্ছা পার্টির পাশে তার স্বল্প সঞ্চয় নিয়ে দাঁড়ানো।অন্য দিকে এটা বোধ হয় বড় কথা নয় রবিন বাবু কাছে কারণ মাত্র ১০০০ টাকা । হলে বসে থাকা সাধারণ সদস্য থেকে সমর্থক বিষয় টি ভালো চোখে নেন নি এবং বিমান বসু সভাপতির হিসেবে নাম ঘোষণার পরও রবিন দেব এসে সভা পরিচালনা টাও সঠিক নয় বলে মনে করেন হলের বাকিরা।

এর পর বিমান বাবু বলেন, একদিকে আমেরিকার আগ্রাসী ভূমিকা পালন করছেন অন্য দিকে কাশ্মীর বিষয়ে বিজেপি সরকারের এই সিদ্ধান্তের বিষয়ে তীব্র প্রতিবাদ করেন।তার পর সূর্য্য কান্ত মিশ্র বলে অপেক্ষা অনেক হয়েছে আর সময় নেই। তিনি বলেন যেভাবে মানুষের ওপর সিদ্ধান্ত চাপিয়ে দিচ্ছে বিজেপি আর নিজেদের আখের গুছাচ্ছে তার ফলে মানুষ বড় অসহায়।বামপন্থীরাই মানুষের পশে দাঁড়াবে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এখন বড় বড় কথা বলছেন , সেদিনের কথা কেও ভুলেছে নাকি , ২০১১ পরিবর্তনের পর , দিনের পর দিন যে অত্যাচারের মুখে নিজেদের জীবন বাজি রেখে বেঁচে রয়েছেন সাধারণ মানুষ।তখন কি গণতন্ত্র ছিল এই বঙ্গে।

সূর্য্য মিশ্র বলেন নিজেদের কে নিষ্ঠার সাথে কোজ করলেই তবে রাজনৈতিক চরিত্র তৈরি হবে। না তো ওই আজ বিজেপি কাল টিএমসি করবেন।আপোষহীন লড়াইয়ের ডাক দিয়েছেন। এর পর সিপিআইএম নেতা সেলিম বলেন দিল্লিতে যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে সেটা একদম ভুল। কাশ্মীরের গণতন্ত্রকে গলা টিপ্ খুন করেছে বিজেপি। তিনি আরো বলেন এই যে লড়াইয়ে আত্মত্যাগের দরকার। যেমন ছিল কাকা বাবুর আত্মত্যাগ।

সব মিলিয়ে সিপিআইএম কিন্তু নিজেদের গুছিয়ে নিচ্ছে সকলের আড়ালে। সভায় উপস্থিত ছিলেন সুজন চক্রবর্তী। অনাদি সাহু , সুভাষ মুখার্জী সহ প্রমুখ নেতা।

Tags
Show More

Related Articles

Back to top button
Close