Big Story

রাত যত বাড়ছে হেভিওয়েটদের ভিড় নীতীশ-মায়াবতী থেকে এয়ার চিফ মার্শাল : গভীর সঙ্কটে জেটলি

অবস্তাহর কোন উন্নতির খবর নেই এই মুহূর্তে। সঙ্কটজনক অবস্থা প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলির , হাসপাতানে আত্বিয়স্বজন থেকে হেভিওয়েটদের ভিড় দিল্লির এইমস হাসপাতালে এখন।

দীর্ঘ দিনের সাংসদ , অনেক বারের মন্ত্রী থেকে দেশের রাজনীতির গুরুত্ব পূর্ণ মুখ অরুন জেঠলি। দেশের গুরুত্ব পূর্ণি বহু সিদ্ধান্তের অংশীদার চূড়ান্ত অসুস্থতায় হাসপাতালে কেউই ইটা মেনে নিতে পারছেন না দল থেকে বিপক্ষ শিবির।

কংগ্রেস নেতা জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া, অভিষেক মনু সিংভি, বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার, উত্তরপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা বহুজন সমাজ পার্টি নেত্রী মায়াবতী বর্ষীয়ান এই রাজনীতিকের শারীরিক অবস্থার খবর পেয়ে শনিবার হাসপাতালে গেলেন । কিছুক্ষন আগে এসেছিলেন রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল এবং এয়ার চিফ মার্শাল বীরেন্দ্র সিং ধানোয়াও।বিজেপি সভাপতি তথা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এবং কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডাঃ হর্ষবর্ধনও শুক্রবার রাতে দিল্লির এইমস হাসপাতালে যান ।

জেটলিকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী গত ৯ অগস্ট হাসপাতালে ভর্তি করার পর দেখা করতে যান । অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ থেকে শুরু করেন একাধিক মন্ত্রী যান প্রাক্তন সতীর্থর শারীরিক অবস্থার খোঁজ নিতে। শুক্রবার এইমস মেডিক্যাল বুলেটিন প্রকাশ করে জানায়, প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী তথা বিশিষ্ট আইনজীবী অরুণ জেটলির অবস্থা স্থিতিশীল।এইমস-এর ডিরেক্টর জেটলির চিকিৎসার জন্য ছুটি বাতিল করে ভিয়েতনাম থেকে দিল্লি ফিরে আসেন । বর্তমানে জেটলির শারীরিক অবস্থা গুরুতর , এই সপ্তাহের মাঝামাঝি এইমস সূত্রে জানা গিয়েছিল কিছুটা উন্নতি হয়েছে জেটলির শারীরিক অবস্থার।

অরুন জেঠলি বেশ কিছুদিন ধরেই ক্যানসারে ভুগছেন এই বর্ষীয়ান রাজনীতিক। চিকিৎসার জন্য বিদেশে গিয়েছিলেন গত বছর একটা বড় সময় । তখন অন্তর্বর্তী অর্থমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন সুরেশ প্রভু।নরেন্দ্র মোদীকে দ্বিতীয়বার বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে বিজেপি ক্ষমতায় আসার পরই জেটলি চিঠি লেখেন । সেই চিঠিতে জানিয়ে দেন, “আমায় আর মন্ত্রিসভায় রাখার কথা ভাববেন না। বলেন আমার শারীরিক অবস্থা যা, তাতে আমার পক্ষে দায়িত্ব সামলানো মুশকিল।”

Tags
Show More

Related Articles

Back to top button
Close