Nation

আকাশে মাঝ পথেই বিমানে যান্ত্রিক গোলযোগ, জারি করা হয় রেড আল্যার্ট।

বিমানের মধ্যে হটাৎ অনুভব হয় কম্পন, তাই জরুরি অবস্থায় মুম্বাইয়ে ইন্ডিগোর বিমানকে করানো হয় অবতরণ।

@ দেবশ্রী : আকাশ পথে যাত্রা করার সময়, সমস্ত রকম সুরক্ষা নিয়ে রাখতে হয়। কিন্তু মাঝপথে সমস্যা হলে তখন ? ঠিক তেমনই হয় ইন্ডিগোর একটি বিমানের সাথে। তখন সবে মাত্র, যাত্রা শুরু করেছে পুনে থেকে জয়পুরগামী ইন্ডোগোর এয়ারবাস এ৩০২ নিও- ৬ই-৬১২৯। কিন্তু সমস্যাতা হয় কিছুটা পথ এগোনোর পরে। হটাৎই মাঝ আকাশে ধরা পড়ে যান্ত্রিক গোলযোগ। আর তখনই সঙ্গে সঙ্গে বিপদের আঁচ পেয়ে, বিমানটিতে রেড অ্যালার্ট জারি করেন পাইলট।

এরপরই যাত্রাপথ পরিবর্তন করে মুম্বইয়ে অবতরণে একপ্রকার বাধ্য হয় ইন্ডিগোর এই বিমানটি। আর এই সময় যখন জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়, তখন আপৎকালীন ব্যবস্থা হিসাবে অ্যাম্বুলেন্সের মতো পরিষেবাগুলি বিমানবন্দরে তড়িঘড়ি মজুত রাখা হয়। পাশাপাশি বিমানটিকে দ্রুত অবতরণের ক্ষেত্রেও অগ্রাধিকার দেওয়া হয়।

সূত্রের মাধ্যমে জানা যাচ্ছে, ইন্ডিগো জানিয়েছে, ফ্লাইট ৬ই-৬১২৯-র পাইলট প্রাথমিক ভাবে ইঞ্জিনে একটি স্পন্দন দেখতে লক্ষ্য করেন। যার ফলে গোটা বিমানটিতে এক প্রকার কম্পনের সৃষ্টি হয়। তারপর তিনি বিপদের আশঙ্কা বুঝে আর কোনও সময় নষ্ট না করে জরুরি অবস্থা জারির ঘোষণা করেন। তারপরই একাধিক অনুসন্ধান ও পর্যবেক্ষণের মাধ্যমে বিমানটিকে মুম্বই বন্দরে জরুরী অবতরণ করানো হয়। তারপরই ওই বিমানের সকল যাত্রীকে অন্য একটি জয়পুর গামী বিমানে তুলে দেওয়া হয়।

কিন্তু কেমন হল এমন, সেই নিয়েও উঠছে প্রশ্ন। যদি কোনোরকম দুর্ঘটনা ঘটে যেত তাহলে কী হতো ? বারবার প্রশ্ন উঠছে সুরক্ষা ব্যবস্থার উপরে। আজ যদি পাইলট সঠিক সময়ে বুঝতে না পারতেন বিপদের কথা তাহলে যে কোনো মুহূর্তে ঘটে যেতে পারতো কোনো দুর্ঘটনা। সুরক্ষার বিষয়ে বিমান সংস্থার তরফ থেকে এখনও পর্যন্ত পাওয়া যায়নি কোনো উত্তর।

Tags
Show More

Related Articles

Back to top button
Close