Health

আবারও প্রাণ কাড়ল ডেঙ্গু !

প্রাণ যাচ্ছে অগুনতি, কিন্তু নির্বিকার রয়েছে প্রশাসন।

@ দেবশ্রী : যায়নি ডেঙ্গুর দাপট। এখনও অব্যাহত তা। শহরে ডেঙ্গুতে, প্রাণ গেল আরও এক জনের। রবিবার কলকতার এক হাসপাতালে মারা যান যুবক। যুবকের ডেথ সার্টিফিকেটও মৃত্যুর কারণ হিসেবে ডেঙ্গুর উল্লেখ রয়েছে।

যুবকের নাম, রোহিত কুমার। তিনি কলকাতার শ্যামপুকুরের বাসিন্দা। কয়েকদিন ধরেই জ্বরে ভুগছিলেন তিনি। স্থানীয় চিকিত্‍সকের পরামর্শেও কমছিল না তাঁর জ্বর। এরপর রক্ত পরীক্ষায় ডেঙ্গু ধরা পড়ে যুবকের। পরে ৮ ডিসেম্বর রাতে তাঁকে কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। সেখানেই চিকিত্‍সা চলছিল তাঁর। পরে সময় যত এগোতে থাকে তার অবস্থার অবনতি ঘটতে দেখা যায়। শেষে রবিবার রাতে হাসপাতালেই মৃত্যু হয় যুবকের।

যুবকের মৃত্যুর খবর প্রকাশ্যে আসতেই পুরসভার ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন স্থানীয়রা। অভিযোগ ওঠে, ডেঙ্গু নিধনে পুরসভার তরফে কার্যত কোনও রকম ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না। নিয়মিত এলাকায় সাফাইও করেন না পুরকর্মীরা। অর্থাত্‍ মশাবাহিত রোগ প্রতিরোধে পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নিচ্ছে না পুরসভা। সেই কারণেই এই নির্মম পরিণতি রোহিতের।

চলতি বছরের মাঝামাঝি সময় থেকেই ডেঙ্গুর প্রকোপ বাড়তে শুরু করেছে রাজ্যে। নতুন করে, নতুন উপসর্গ নিয়ে বারবার ফিরে আসছে ডেঙ্গু। মারণক্ষমতা ক্রমাগত বাড়ছে। ইতিমধ্যেই বেশ অনেকের মৃত্যু হয়েছে ডেঙ্গুতে। সেই সঙ্গে স্ক্রাব টাইফাসও আতঙ্ক ছড়াতে শুরু করেছে। অচেনা বিষাক্ত পোকার কামড়ে মৃত্যুর মুখে ঢলে পড়েছেন দু-একজন। মৃত্যুর কারণ নির্ণয় করতেই লেগে গিয়েছে বেশ কিছুটা সময়। তারপর চিকিত্‍সকরা স্ক্রাব টাইফাসকে চিহ্নিত করে, সতর্ক করেছেন। সম্প্রতি ম্যালেরিয়াও থাবা বসিয়েছে কলকাতায়।

রোগে যেন জর্জরিত কলকাতা, কিন্তু মুখে বহুবার বললেও কাজে কিছুই করছে না পুরসভা। এত গুলি মানুষের প্রাণ যাচ্ছে তাও নেওয়া হচ্ছে না উপযুক্ত ব্যবস্থা। এখানেও বারবার টেনে আনা হচ্ছে রাজনৈতিক স্বার্থকে।

Tags
Show More

Related Articles

Back to top button
Close