Big Story

এনপিআর বিজ্ঞপ্তির তালিকাতে নাম নেই বাংলা ও কেরলের, নাগরিকদের স্বার্থে হতে দেওয়া যাবে না এনপিআর।

মমতা বন্দোপাধ্যায় ও পিনারাই বিজয়ন নিজেদের দাবিতে অনড়, কিছুতেই রাজ্যে হতে দেবে না এনপিআর।

@ দেবশ্রী : অনেক রাজ্যই জানিয়েছিল তাদের রাজ্যে কোনোমতেই এনপিআর বা এনআরসি কিছুই হতে দেবে না। কিন্তু বুধবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের নির্দেশের পর প্রত্যকেটি রাজ্য সরকার, এনপিআর-এর জন্য বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে তাদের রাজ্যের জন্য। কিন্তু এই তালিকা থেকে বাদ রয়েছে দুটি রাজ্যের নাম। পশ্চিমবঙ্গ এবং কেৱল। এনপিআর নিয়ে শুরু থেকেই আপত্তি জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। এছাড়া বহু মানুষতো রয়েছে যারা এর বিরুদ্ধে রাস্তায় নেমে প্রতিবাদী আন্দোলন করেছে। পশ্চিমবঙ্গ স্পষ্টভাবে জানিয়েছে, তারা কোনোরকম কাগজ দেখাবে না। আর এখন এনপিআর নিয়ে একই ধরনের অবস্থান, কেরলের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়নেরও। দুই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর বলেছেন তাদের এই অবস্থান তাদের রাজ্যের নাগরিকদের স্বার্থে কেবলমাত্র।

এনপিআর বা জাতীয় পপুলেশন রেজিস্টার নিয়ে ফের বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে দেশের সব রাজ্য। কিন্তু তৃণমূল শাসিত পশ্চিমবঙ্গ ও বাম শাসিত কেরল এখনও পর্যন্ত এব্যাপারে কোনও রকম পদক্ষেপ নেয়নি। জানা যাচ্ছে, ইতিমধ্যেই প্রিন্সিপাল সেনসাস অফিসারের কাছে প্রত্যেকটি রাজ্য নিজেদের অবস্থানের কথা জানিয়েছে। কিন্তু তার মধ্যে নেই বাংলা ও কেরল। কেন্দ্রীয় জনগণনার নিয়মে স্পষ্ট করে বলা হয়েছে, ভুল তথ্য দিলে রাজ্যগুলিকে জরিমানা করা হবে।

নাগরিকত্ব আইন ও এনআরসি নিয়ে শুরু থেকেই কেন্দ্র-বিরোধিতায় সরব বিজেপি-বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলি। সাথেই হাজারো মানুষ। যারা কোনো রাজনৈতিক দলের না হয়ে দেশের নাগরিক হিসাবেই নিজেদের প্রতিবাদ চালিয়ে গেছে। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও কেরলের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়নও একইভাবে কেন্দ্র-বিরোধিতায় নিজেদের সুর চড়িয়েছেন। নাগরিকত্ব আইন ও এনআরসি বাতিলেরও দাবি জানিয়েছেন মমতা-বিজয়ন। একইভাবে এনপিআর নিয়েও তাঁদের আপত্তির কথা তাঁরা জানিয়েছেন। যদিও কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এই দুই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে এনপিআর নিয়ে কাজ শুরু করতে আবেদন জানিয়েছেন। এবিষয়ে কোনও সমস্যা থাকলে অমিত শাহ নিজে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও পিনারাই বিজয়নের সঙ্গে আলোচনাতেও প্রস্তুত বলে জানিয়েছেন অমিত শাহ। তবে আদেও কী এই দুই রাজ্যে এনপিআর হবে সেই নিয়ে রয়েছে বড় সংশয়। কারন সবাই নিজেদের দাবিতে অনড়।

Tags
Show More

Related Articles

Back to top button
Close