Big Story

এবারের রঙ্গমঞ্চ, শপথ গ্রহণের অনুষ্ঠানকে ঘিরে

এই মহানাটকের যেন কোনো অন্ত নেই, ধারাবাহিকভাবে চলে যাচ্ছে তা। মুখ্যমন্ত্রীর শপথ গ্রহণের অনুষ্ঠানে কে ঘিরে তৈরী হচ্ছে নতুন সমালোচনা।

@ দেবশ্রী : প্রায় দেড় মাস ধরে চলছে, মহারাষ্ট্রের মহানাটক। তবে সেই সব নাটকের পর, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যে বেলা শপথ নিতে চলেছেন, শিবসেনা প্রধান উদ্ধব ঠাকরে। বর্তমানে সেজে উঠেছে শিবাজী পার্ক। এখানেই নেওয়া হবে শপথ। গোটা দেশ এই মুহূর্তে মুখিয়ে রয়েছে এই শপথ গ্রহণের অনুষ্ঠানের জন্য।এই প্রথমবার মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী পদে, শপথ নিতে চলেছেন ঠাকরে পরিবারের কোনও সদস্য। তবে শপথ গ্রহণের আগে আসছে নানান বাঁধা, উঠছে বহু প্রশ্ন, যার উত্তর কোনো মতেই পাওয়া যাচ্ছে না। অপেক্ষা রয়েছে, শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানের।

প্রথমেই, কংগ্রেস-এনসিপি-শিবসেনা জোটের মুখ্যমন্ত্রী পদের জন্য উদ্ধবের নাম ঘোষণা করেছিলেন এনসিপি প্রধান শরদ পাওয়ার। তবে মন্ত্রিসভায় কারা ঠাঁই পাবেন, তা ঠিক করতেই বুধবার সকাল থেকেই শুরু হয় তিন দলের ম্যারাথন বৈঠক।

সূত্রের খবরে জানা যায়, গুরুত্বপুর্ণ ছয় মন্ত্রকের জন্য উঠে এসেছে তিন দলের দু’জন করে নেতার নাম। যার মধ্যে রয়েছেন শিবসেনার একান্ত শিন্ডে এবং সুভাষ দেশাই। এনসিপির জয়ন্ত পাটিল এবং ছাগ্‌গাল বাজুবল। কংগ্রেসের বালাসাহেব থোরাট এবং অশোক চৌহানের নাম।

দেবেন্দ্র ফড়নবিশের সঙ্গে শপথ নেওয়ার পর মাত্র চার দিন উপ-মুখ্যমন্ত্রী পদে ছিলেন এনসিপির অজিত পাওয়ার। তারপর মঙ্গলবার নিজের ইস্তফা দিয়ে দেন এবং সাথে তার বিজেপিতে যোগদেন করার কথা উঠে আসে। পরে মনোমালিন্য ঘুচিয়ে পুনরায় দলে ফেরেন তিনি। বুধবার বিধানসভায় অন্যান্য বিধায়কদের সঙ্গে শপথও গ্রহণ করেন তিনি। অজিত পওয়ার স্পষ্ট জানিয়ে দেন, এনসিপিতে ছিলেন এবং এনসিপিতেই থাকবেন।

তবে এই মুহূর্তে আরও একবার উপমুখমন্ত্রী হিসাবে, অজিত পওয়ার শপথ গ্রহণ করবেন নাকি অন্য কেউ করবেন তা নিয়ে রয়েছে এখনও ধোঁয়াশা। একবার দল থেকে বের হয়ে যাওয়ার পরে পুনরায় আগের পদ তাকে ফেরত দেওয়া হবে কী না সেই নিয়ে উঠছে বহু প্রশ্ন। “মহা বিকাশ আগাধি সরকার” -এর সেই পদ তাঁর জন্য বরাদ্দ রয়েছে এমনটাই এনসিপি সূত্রের খবর। এমনও খবর রয়েছে, বৃহস্পতিবার শিবাজি পার্কে উদ্ধব ঠাকরের সঙ্গে শপথ না-ও নিতে পারেন তিনি। তবে উপমুখ্যমন্ত্রী পদের জন্য অজিত ছাড়াও নাম উঠে আসছে জয়ন্ত পাটিলের। স্পিকারেরে পদ কোনও কংগ্রেস নেতা পাবেন বলেই সূত্রের খবরে জানা যায়। এখানেই উঠে আসছে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী পৃথ্বীরাজ চৌহানের নাম।

জানা যাচ্ছে, মহারাষ্ট্রের ৪৩ টি মন্ত্রকের মধ্যে ১৫ টি মন্ত্রক পেতে চলেছে শিবসেনা। ১৬ টি পেতে পারে এনসিপি, কংগ্রেসের ভাগ্যে জুটতে পারে ১২ টি মন্ত্রক।

বৃহস্পতিবার শিবসেনা প্রধানের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকার জন্য আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে সমস্ত রাজনৈতিক দলের শীর্ষ নেতৃত্বদের। বুধবার সোনিয়া গান্ধী এবং মনমোহন সিংকে আমন্ত্রণ জানাতে নয়া দিল্লিতে উপস্থিত হন আদিত্য ঠাকরে। আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। ইতিমধ্যেই উপস্থিত হয়েছেন ডিএমকে প্রধান এমকে স্ট্যালিন। জানা গেছে, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় উপস্থিত থাকবেন না এই শপথ গ্রহণের অনুষ্ঠানে।

মহারাষ্ট্রের ফল ঘোষণার পর কৃষকদের সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন উদ্ধব ঠাকরে। সেখানে গিয়ে বহু কৃষক পরিবারের সঙ্গে দেখা করেন তিনি। এদিনের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকার জন্য নিমন্ত্রণ জানিয়েছেন ৪০০ জনের কৃষক পরিবারকে।

শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে কে আসবে বা কে না আসবে সেই নিয়ে তো খগানিক সমালোচনা রয়েই যাচ্ছে, কিন্তু সবথেকে বড় প্রশ্ন থেকে যাচ্ছে, অজিত পওয়ারের পদের ভূমিকা নিয়ে ? তিনি কী আবারও উপমুখ্যমন্ত্রী পদে বসবেন নাকি অন্য কিছু ? কে হবে মহারাষ্ট্রের পরবর্তী উপমুখ্যমন্ত্রী ? অজিত পওয়ার নাকি অন্য কেউ ?

Tags
Show More

Related Articles

Back to top button
Close