Analysis

ঝুমা দত্ত : শারদ সম্মান আছে বলেই শিল্পীদের কাজের কদর বাড়ছে !

নতুন খোঁজের সন্ধানে।নতুন কাজ নতুন ভাবনা সব মিলিয়ে এটা আন্তর্জাতিক মানের উদ্যোগ এই বাংলাতে ।আর সব নিয়ে" যুব কল্যাণ শারদ সম্মান ২০১৯" এর চূড়ান্ত প্রস্তুতি চলছে। আগামী ২৩ সে সেপ্টেম্বর থেকে প্রাক-প্রাথমিক নির্বাচনের প্রক্রিয়া শুরু হচ্ছে।

ওপিনিয়ন টাইমস কে একান্ত সাক্ষাৎকারে যুব কল্যাণ শারদ সম্মান ২০১৯ এর অন্যতম বিচারক আন্তর্জাতিক চিত্র গ্রাহক ঝুমা দত্ত জানালেন “পুজোর আগে পুজোর কথা সঙ্গে ছিলেন ইন্দ্রানী চ্যাটার্জী ” .

১) সমগ্র রাজ্যের অনেক শিল্পী কলাকুশলীরা হাজির হন দূর্গা পুজোকে কেন্দ্র করে।
২) বিকল্প আয়ের একটা দিক , কম পক্ষে ৮০ দিনে কাজ করেন এই উদ্যোগকে কেন্দ্র করে।
৩) কলকাতায় এখন ৮ দিন ধরে ভালো ভালো কাজ দেখা সুযোগ হয়।
৪) অতিতিতের হারিয়ে যাওয়া শিল্প পুনরুদ্ধারের এটা একটা ভালো প্রক্রিয়া।
৫) শিল্পীদের সম্মানের ক্ষেত্রে এর থেকে আর ভালো কি হতে পারে।
৬) নতুন ও প্রতিষ্ঠিত শিল্পীদের একসাথে কাজ দেখার সুযোগ, এই উৎসবকে অন্য মাত্রা দিয়েছে।
৭) পাড়া সংস্কৃতি গড়ে উঠছে , নতুন ভাবনার খোঁজে এক দল পুজো পাগল মানুষ সারা বছর শিল্পী ও শিল্পের মাঝে অবস্থান করে। ফলে নতুন আঙ্গিকে পৃঠপোষকের সৃষ্টি হয়েছে এই সমাজে।
৮) সরকার বা রাষ্ট্র সব কিছু করে দেয় না , সাধারণ মানুষ যদি এগিয়ে না আসে তাহলে শিল্প ও শিল্পীরা হারিয়ে যাবে কালের গতিতে।
৯) নীরবে যে সব শিল্পীরা কাজ করছেন তাদের কাছে এটা একটা বড় পাওনা হয়ে উঠেছে ,সাধারণ মানুষের নতুন জামাকাপড়ের সাথে এবারে কাদের কি থিম হচ্ছে সেই নিয়ে কৌতূহল বেশ প্রশংসার দাবি রাখে এই রাজ্যে।
১০) শিল্পী শিল্প ও পুজোর উদ্যোগতাদের মাঝে বেশ জায়গা করে নিয়েছে শারদ সম্মান প্রদানকারী সংস্থাগুলো।

এবারে যুব কল্যাণ শারদ সম্মানের কাছে এখন পর্যন্ত কয়েক শো আবেদন এসেছে , তবে কয়েক দিন ধরেই চলছে ঝাড়াই বাছাই। ফলে চিন্তার কিছু নেই ২৩ তারিখ থেকেই পৌছে যাবে আগাম খোঁজ খবর নেওয়ার জন্য ওপিনিয়ন টাইমস । তবে একটু আলাদা ভাবে ভাবনা চিন্তা করা হচ্ছে এবার। যেমন মহালয়ার দিন প্রতিটি অংশ গ্রহণ কারী পুজো কমিটি তাদের মণ্ডপের ২ মিনিটের কম বেশি একটি ভিডিও পাঠাবে আমাদের হোয়াটসআপ নম্বরে ৮০১৭৪০২৫৩৯ । আর সেই সাথে শুরু হয়েযাবে ভিডিও স্ক্রিনিং। একদিকে যেমন ফিজিক্যাল ভিজিট হবে পাশাপাশি ভিডিও স্ক্রিনিংও পাশাপাশি চলবে , ফলে আরো সঠিক বিচার ব্যবস্থার মাপকাঠি যাতে তৈরি করা যায়। বাজেট হোক ছোট আর বড় তাতে কোন সমস্যা নয় , এই বিষয়ের জন্যে আলাদা করে ভাবনা চিন্তা করা হচ্ছে যুব কল্যাণ শারদ সম্মানের তরফে। আর এই সব নিয়েই ২রা অক্টোবর কাদের হাতে ওঠে এবারের যুব কল্যাণ শারদ সম্মান ২০১৯।

পুজোতে বিজ্ঞাপনের বাজার মন্দ , ভাঁড়ারে টান অধিকাংশ পুজো কমিটির। মহালয়া থেকে অধিকাংশ দুর্গাপুজোর প্রতিযোগিতা শুরু এবার কারণ চতুর্থীর বিকেল থেকে আর ঘোরা যাবে না বিশিষ্টই জনেদের কে নিয়ে , আমপাবলিকের জন্য অবারিত দাঁড় খুলে দেওয়া হবে। ফলে ইভেন্ট ওয়ালাদের কপালে হাত এত অল্প সময়ের মধ্যে কিভাবে সম্ভব। কিন্তু সরকারি নিদান মানতেই হবে।

Tags
Show More

Related Articles

Back to top button
Close