Sports Opinion

‘তা হলে কবে হবে টোকিয়ো অলিম্পিক্স ?

খেলা প্রেমিদের মাথায় এখন একটাই চিন্তা, তা হলো অলিম্পিক।

পল্লবী : করোনা সত্যিই সকলের পথের কাঁটা হয়ে দাঁড়িয়েছে। যেকোনো কাজে হাত দেওয়ার আগেই মাথায় চলে আসে এই করোনার চিন্তা। অলিম্পিক্স পিছিয়ে যাওয়ার ২৪ ঘণ্টা পরে একটা প্রশ্ন সব চেয়ে বেশি করে উঠে পড়েছে। কবে তা হলে টোকিয়ো অলিম্পিক্স হবে?

আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটি (আইওসি)-র প্রেসিডেন্ট টমাস বাখ আগের দিন বলেছিলেন, ‘‘পরের বছর গ্রীষ্মের আগেই অলিম্পিক্স শেষ করতে হবে।’’ পরের বছর গ্রীষ্ম বলতে জুলাই-অগস্ট মাস। যে সময় এ বছরে অলিম্পিক্স হওয়ার কথা ছিল (২৪ জুলাই থেকে ৯ অগস্ট)। কিন্তু বুধবার বাখ বলেছেন, তার আগেও হতে পারে অলিম্পিক্স।

সাংবাদিকদের সঙ্গে টেলিকনফারেন্সে আইওসি প্রেসিডেন্ট বলেছেন, ‘‘আমাদের মধ্যে চুক্তি হয়েছে যে, ২০২১ সালের গ্রীষ্মের মধ্যে গেমস করতে হবে। তার মানে এই নয় যে, গ্রীষ্মেই অলিম্পিক্স হবে। আমরা সব রকম বিকল্পই খতিয়ে দেখব।’’ তবে তিনি মেনে নিয়েছেন, অলিম্পিক্সের নতুন সূচি করাটা বিরাট একটা জটিল ধাঁধার মতো। বড় প্রতিযোগিতাগুলোর মধ্যে অলিম্পিক্সই সব চেয়ে শেষে বাতিল হয়েছে। যে কারণে অনেকেই প্রশ্ন তুলেছেন, এই সিদ্ধান্ত নিতে কেন এত দেরি হল? এই প্রশ্নের উত্তরে বাখ আবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নাম টেনে এনেছেন। তিনি বলেছেন, ‘‘অনেক দেশই এপ্রিলের মাঝামাঝি পর্যন্ত বিধিনিষেধ জারি রেখেছিল। ট্রাম্পও তো বলেছিলেন, এপ্রিলের মাঝামাঝি বিধিনিষেধ শিথিল হবে। আমরা সে জন্য অপেক্ষা করছিলাম।’’ ট্রাম্প আবার জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজ়ো আবেকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেছেন, ‘‘অসাধারণ সিদ্ধান্ত ২০২১ সালে অলিম্পিক্স আয়োজন করার। শিনজ়ো ও আইওসিকে ধন্যবাদ। আশা করছি, আমিও হাজির থাকব অলিম্পিক্সে।’’

আইওসি-র সামনে এখন সব চেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হল, পরের বছর এমন একটা সময় খুঁজে বার করা, যখন অন্য কোনও প্রতিযোগিতা চলবে না। প্রথমে সবাই ভেবেছিলেন, আগামী বছর জুলাই-অগস্টেই হয়তো অলিম্পিক্স হবে। কিন্তু বাখের ইঙ্গিত, পরের বছর বসন্তে হতে পারে অলিম্পিক্স। জাপানে যে সময়টা মার্চ থেকে মে মাস। সাংবাদিকদের বাখ বলেছেন, ‘‘প্রচুর সমস্যা থাকলেও আমরা সব বিকল্প খতিয়ে দেখছি। গ্রীষ্মের আগেও হতে পারে অলিম্পিক্স। তবে আমাদের অনেক আত্মত্যাগ, অনেক সমঝোতা করতে হবে।’’ আইওসি কর্তা এও বলেন, ‘‘আমাদের লক্ষ্য সুষ্ঠু ভাবে অলিম্পিক্স আয়োজনও ও অ্যাথলিটদের স্বপ্ন পূরণ করা। আমাদের সামনে এখন কোনও নীল নকশা না থাকলেও আশা করছি, খুব ভাল একটা অলিম্পিক্স সবাইকে উপহার দিতে পারব।’’

অলিম্পিক্স পিছিয়ে যাওয়ার পরেও জাপানের একটা সংগঠন দাবি করেছে, পুরো বাতিল করা হোক প্রতিযোগিতা। বাখও স্বীকার করেছেন, অলিম্পিক্স বাতিলের কথাও উঠেছিল। তিনি বলেছেন, ‘‘অলিম্পিক্স বাতিল করে দেওয়ার কথাও আলোচনা হয়েছিল। কিন্তু প্রথম থেকেই আইওসি বুঝিয়ে দেয়, অলিম্পিক্স বাতিল করে দেওয়াটা বিকল্প হতে পারে না।’’

অলিম্পিক নিয়ে এখনো কোনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে আস্তে পারেনি কতৃপক্ষ। নানা ধোঁয়াশা এখনো চলছে।

Tags
Show More

Related Articles

Back to top button
Close