Health

তেজস এক্সপ্রেসের খাবার খেয়ে গুরুতরভাবে অসুস্থ যাত্রীরা, তবুও দোষ মানতে অস্বীকার রেল কর্তৃপক্ষের।

বারংবার অভিযোগ উঠছে রেলে খারাপ খাবার দেওয়ার, এবারে প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্নের রেলের বিরুদ্ধেও একই অভিযোগ। তারপরেও নেওয়া হচ্ছে না পদক্ষেপ।

@ দেবশ্রী : আবারও রেল কর্তৃপক্ষের গাফিলতি। রেলের খাবার খারাপ হওয়াতে অসুস্থ যাত্রী। এবারে শতাব্দীর পর, তেজস এক্সপ্রেস। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর, স্বপ্নের এক্সপ্রেস ট্রেনের খাবার খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়লেন যাত্রীরা। আর সেই কারণেই তৈরী হয়, বিস্তর বিক্ষোভ। একেই এই এক্সপ্রেসের টিকিটের দাম বেশ চড়া তার উপরে বেশি টাকা দিয়ে খেয়েও অসুস্থ হচ্ছেন যাত্রীরা। তাই অভিযোগে ফেটে পড়েছেন যাত্রীরা। এতো টাকা দিয়ে খাওয়ার পরে যদি অসুস্থ হতে হয় তা কখনওই মেনে নেওয়া যায় না, এমনটাই অভিযোগ জানিয়েছে যাত্রীরা।

এই ঘটনাটি ঘটে কারমালি থেকে মুম্বইগামী তেজস এক্সপ্রেসে। অভিযোগ ওঠে ওই এক্সপ্রেসের খাবার খেয়ে অন্তত পাঁচজন যাত্রী অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। পেটে তীব্র ব্যথা নিয়ে ঘন ঘন বমি করতে থাকেন তাঁরা। তেজস এক্সপ্রেসে দেওয়া ভেজ পোলাও খেয়েই তাঁরা অসুস্থ হয়ে পড়েন বলে অভিযোগ ওঠে। রেল সূত্রে খবর, গত ১১ জানুয়ারি কারমালি থেকে মুম্বইগামী তেজস এক্সপ্রেসে রাতের খাবারে ভেজিটেবল পোলাও দেওয়া হয়েছিল যাত্রীদের। তা খাওয়ার সময়ই অনেকে পচা গন্ধ পান বলে অভিযোগ। এমনকী রাতরাতি অসুস্থ হয়ে পড়েন অন্তত পাঁচজন যাত্রী। এই বিষয়ে তেজস এক্সপ্রেসের দায়িত্বপ্রাপ্ত ক্যাটারিং সংস্থার কাছে অভিযোগ জানিয়েছিলেন তাঁরা। এমনকী চিকিত্‍সক নিয়ে আসার অনুরোধ করতে থাকেন। কিন্তু প্যান্ট্রিকারের কর্মীরা কোনও কথাই কানে তোলেননি বলে অভিযোগ উঠেছে। নিতান্তই তাদের কথা এড়িয়ে চলে গেছে তারা।

যদি এই বিষয়ে সাফাই দিয়েছে আইআরসিটিসি। তাঁদের এক আধিকারিক জানান, তাঁদের খাবারে কোনওরকম সমস্যা ছিল না। ২৭টি প্যাকেট ভুলভাবে প্যাক করা হয়েছিল বলেই সেখান থেকে পচা গন্ধ বেরিয়েছিল। তবে ক্যাটারিং সংস্থাকে এই ঘটনায় শোকজ নোটিস দেওয়া হয়েছে। এবং তার পাশাপাশি ১ লাখ টাকা জরিমানাও করা হয়েছে।

কিন্তু বারবার কেন এই ভুল হচ্ছে ? যাত্রীরা তাদের খাবার খেয়েই অসুস্থ হচ্ছেন কিন্তু নিজেদের দশ কিছুতেই স্বীকার করছে না রেল কর্তৃপক্ষ। তাঁদের মতে এটা তাদের গাফিলতির কারন নয়। যদি তেমনটাই হয় তাহলে কার গাফিলতিতে বারবার অসুস্থ হচ্ছেন যাত্রীরা ? কেন নেওয়া হচ্ছে না কোনো পদক্ষেপ ? এতগুলো অভিযোগ আসার পরেও তারা কেন কোনোরকম ব্যবস্থা নিচ্ছে না ? এর পরেও যদি এমন ঘটনা আবারও ঘটে তাহলে কী করবে রেল কর্তৃপক্ষ ? কারন এতগুলো টাকা দিয়ে কোনো যাত্রীই কখনও অসুস্থ হতে চাইবেন না।

Tags
Show More

Related Articles

Back to top button
Close