Analysis

দেশের সংক্রমণের এরূপ হারের সিংহভাগই বহন করছে মহারাষ্ট্র

মহারাষ্ট্রের স্বাস্থ্য দফতরের তথ্য অনুযায়ী এখন সেখানে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা মোট ৪৪,৫৮২

পল্লবী : বিশেষজ্ঞদের আশঙ্কা সত্যি করে খুব সহজেই চিন কে পেরিয়ে গেছে ভারত। আর এবার হয়তো আর হাতে গোনা কিছু দিনের মধ্যে পেরিয়ে যাবে আমেরিকাকেও। ভারতে ইতিমধ্যেই করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ পেরিয়েছে। সংক্রমণের প্রথম পর্যায় থেকেই করোনাভাইরাসের প্রভাব সবচেয়ে বেশি মহারাষ্ট্রে। শুক্রবার মহারাষ্ট্রে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ২৯৪০ জন। মৃত্যু হয়েছে ৬৩ জনের। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তথ্য অনুসারে এখানেই মৃতের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি।

মহারাষ্ট্রের স্বাস্থ্য দফতরের তথ্য অনুযায়ী এখন সেখানে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা মোট ৪৪,৫৮২। আর কোভিড-১৯ সংক্রমণে মৃত্যু হয়েছে মোট ১৫১৭ জনের। আর মহারাষ্ট্রের মুম্বাই চিন্তা বাড়াচ্ছে সবচেয়ে বেশি। শুক্রবার যে ২৯৪০টি কোভিড কেসের সন্ধান পাওয়া গিয়েছে তার মধ্যে ১৭৫১টি মুম্বইয়ের। এমনটাই জানিয়েছে বৃহন্মুম্বই মিউনিসিপাল কর্পোরেশন। নতুন করে কোভিড-১৯ সংক্রমণে যে ৬৩ জনের মৃত্যু হয়েছে তাঁদের মধ্যে ২৭ জন মুম্বইয়ের। তবে এর পাশাপাশি ১২,৫৮৩ জন কোভিড সংক্রমণ সারিয়ে সুস্থ হয়ে বাড়িও ফিরেছেন। শুক্রবারই ৮৫৭ জনকে হাসপাতাল থেকে ছাড়া হয়েছে। এমনটাই জানিয়েছেন, মহারাষ্ট্রের স্বাস্থ্য আধিকারিকরা।

এখনও পর্যন্ত মুম্বইতের করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২৭,২৫১। মৃত্যু হয়েছে ৯০৯ জনের। ১৭ মে-র পর এই প্রথম মুম্বইতে একদিনে একসঙ্গে এতজন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। গত ১৭ মে মুম্বইতে করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন ১৫৭১ জন শুক্রবার মুম্বই ছাড়াও পুণেতে ৯ জন, জলগাঁওতে ৮ জন, সোলাপুরে ৫ জন, ভাসাই-বিহার এবং ঔরঙ্গাবাদে ৩ জন করে মোট ৬ জন, সাতারাতে ২ জন এবং মালেগাঁও, থানে, কল্যাণ-ডোম্বিভালি, উল্লাসনগর, পানভেল ও নাগপুরে একজন করে মোট ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে কোভিড-১৯ সংক্রমণে। মোট ১৯৪৯টি কন্টেইনমেন্ট জোন রয়েছে মহারাষ্ট্রে। পরিস্থিতি ক্রমেই জটিল হচ্ছে, স্বাস্থমন্ত্রকের অধিক সচেতনতা প্রয়োজন এমনটাই জানাচ্ছে বিশেষজ্ঞমহল।

Tags
Show More

Related Articles

Back to top button
Close