Nation

নোবেলজয়ী অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়কে তিহার জেলেও কাটাতে হয়েছে ১০ দিন

দেশদ্রোহিতার অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়েছিল তাঁকে।

প্রেরনা দত্ত : অর্থনীতিতে অমর্ত্য সেনের পরে আর এক বাঙালি অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাতে উঠল নোবেল পুরস্কার। দারিদ্র দূরীকরণের গবেষণার জন্য তাঁর সঙ্গে একই সম্মানে ভূষিত হলেন ফ্রান্সের এসথার ডাফলো ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনীতিবিদ মাইকেল ক্রেমার।১৯৮৩ সালে ১০ দিন জেলে ছিলেন ২০১৯ সালে অর্থনীতিতে নোবেলজয়ী অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় ৷ সেই সময় তিনি ছিলেন  জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র। ১৯৮৩ সালে ছাত্র বিক্ষোভে সামিল হয়েছিলেন ৷ ছাত্র সংসদের সভাপতিকে বহিষ্কারের প্রতিবাদে তাঁরা তৎকালীন উপাচার্যকে ঘেরাও করেছিলেন। ঘেরাও হটাতে ডাকা হয় পুলিশ। ছাত্র-ছাত্রীদের মেরে ঘেরাও সরানো হয়। গ্রেফতার করা হয় তাঁদের।

২০১৬ সালে সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত এক রিপোর্টে অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় তিহারের অভিজ্ঞতার কথা জানিয়েছিলেন। তিহারে ১০ দিনে কাটানোর সময় অত্যাচার করা হয়েছিল। পেটানো হয়েছিল লাঠি  দিয়ে। দেশদ্রোহিতার অভিযোগে গ্রেফতার করা হলেও  সৌভাগ্যবশত সেই চার্জ উঠে যাওয়ার ফলে  ১০ দিনের বেশি থাকতে হয়নি। সেই সময়ে কেন্দ্রে কংগ্রেস ছিল ক্ষমতায়। অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়ের কথায়, ওরা বলত, আমরা বস। চুপ করে থাকো। ভদ্রভাবে থাকো। সরকার সেই সময়েও বিশ্ববিদ্যালয়ে আধিপত্য বিস্তার করতে চাইত বলে জানিয়েছিলেন নোবেলজয়ী।সোমবার নোবেল কমিটি ২০১৯-এ অর্থনীতিতে পুরস্কার প্রাপকদের নাম ঘোষণা করে। যাঁদের মধ্যে রয়েছেন সস্ত্রীক অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় এবং এস্টার ডাফলো।

Tags
Show More

Related Articles

Back to top button
Close