Big Story

প্রশান্থ কিশোর নাগরিকত্ব বিল নয় নিজের বড় মক্কেলের মান রাখতে জেডিইউয়ের নিন্দা করলেন !

বাণিজ্যে বসত লক্ষি , এই কথার রেস্ ধরেই হালে উঠে আসা ভোটকৌশলী প্রশান্ত কিশোর নিজে জেডিইউ ভাইস প্রেসিডেন্ট হয়েও দলের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে সবর হলেন দলের সুপ্রিমোর সিদ্ধান্তে বিরুদ্ধে । তবে সেটা সোশ্যাল মিডিয়াতেই সীমাবদ্ধ।

নিজস্ব সংবাদদাতা : সমালোচনার ঝড় বইছে প্রশান্থ কিশোরের টুইট নিয়ে , কারণ জেডিইউ এর তিনি ভোটের রণকৌশলের দায়িত্বে ও অফিসিয়ালি দলের সহসভাপতি। আর আগাম ধারণার মধ্যে আছে যে এক দিকে যখন এনআরসির বিপক্ষের রাজনীতিতে দাঁড়িয়ে টিএমসি হয়ে কৌশল করছেন তখন আরেক মক্কেল এন আর সির পক্ষে যাওয়াতে আপাতত দৃষ্টিতে বিশ্বাস যোগ্যতার সমস্যা হতে পারে তাই ডবল স্ট্যান্ড তৈরি করে নিজের বাণিজ্য রাখার দিকে হাঁটছেন।

নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলে সমর্থন দেওয়ায় দলের বিরুদ্ধেই সরব হলেন জেডিইউ ভাইস প্রেসিডেন্ট ও ভোটকৌশলী প্রশান্ত কিশোর। সোশ্যাল মিডিয়ায় দলের নিন্দায় মুখ খুললেন তিনি।নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলে সমর্থন দেওয়ায় দলের বিরুদ্ধেই সরব হলেন জেডিইউ ভাইস প্রেসিডেন্ট ও ভোটকৌশলী প্রশান্ত কিশোর। সোশ্যাল মিডিয়ায় দলের নিন্দায় মুখ খুললেন তিনি।

আর এই নিয়ে টুইটারে প্রশান্ত কিশোর লেখেন, ধর্মের ভিত্তিতে যে বিল তৈরি হয়েছে তাকে সমর্থন করেছে জিডিইউ। লোকসভায় দলও ওই ভূমিকা দেখে আমি হতাশ। জেডিইউয়ের সংবিধানের প্রথম পাতাতেই তিন বার ধর্মনিরপেক্ষতার কথা রয়েছে। ওই গাইডলাইনের পরও দলের নেতারা ওই কাজ করলেন।এই সিদ্ধান্ত অনেক আগেই তৈরি করেছে জেডিইউ , তাহলে সেটা তো প্রশান্থ কিশোরের জানা বিষয় যে তার দল এন আর সি কে সমর্থন করবে , ফলে এই টুইট আরো প্রমান করছে প্রশান্থ জানেন না অথচ লোকসভায় জেডিইউ সমর্থন করবে বিলের পক্ষে এটা বোধ হয় রাজনৈতিক মহলে বিশ্বাস যোগ্য নয়।প্রশান্থ কিশোর এতো বড় সিদ্ধান্তের জন্য যদি দল থেকে পদত্যাগ করে এই টুইট করতেন তাহলে রাজনৈতিক বিশ্বাস যোগ্যতা সৃষ্টি হাত। তিনি আগাম অবস্থান বুঝতে পেরে মান ও কুল বাঁচাতে টুইট করেছেন।

Tags
Show More

Related Articles

Back to top button
Close