West Bengal

ভয় দেখাতে এবার শুরু হয়েছে বোমাবাজি

আসন্ন আস্থা ভোটে, বোর্ড গঠন করতে মরিয়া দুই দল। আশ্রয় নিচ্ছে নানান কায়দার।

@ দেবশ্রী : আবারও রাজনৈতিক স্বার্থে, বোমাবাজির ঘটনা, ভাটপাড়ায়। রবিবার রাতের বেলা, পুরসভার ৩১ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল কাউন্সিলর লাহিড়ীর ভাইয়ের বাড়িতে ঘটে যায় বোমাবাজি। কল্পনাদেবী অভিযোগ করেন, এই কাজের পিছনে রয়েছে বিজেপি। তৃণমূলীরা যাতে অনাস্থা না আন্তে পারে, তাই ভয় দেখানোর জন্যেই এমনটা করেছে বিজেপি। বিজেপি অবশ্য এই অভিযোগ মিথ্যে বলে উড়িয়ে দিয়েছে।

গেরুয়া শিবিরের এক নেতা বলেন, তৃণমূল নিজেরাই বাজি ফাটিয়ে বিজেপির উপর দোষ চাপাতে চাইছে। লোকসভা ভোটে জেতার পর থেকে অর্জুন সিং-এর দাপটে ব্যারাকপুর শিল্পাঞ্চলে লাইন দিয়ে পুরসভা গুলি দখল করে নিয়েছিল বিজেপি। কিন্তু পুজোর আগে থেকে হালিশহর, কাঁচরাপাড়া , গারুলিয়া-সহ হাতের বাইরে চলে যাওয়া পুরসভাগুলিকে পুনরায় ফেরাতে শুরু করে তৃণমূল। সর্বশেষ গত ৬ নভেম্বর ভাটপাড়া পুরসভার ১২জন কাউন্সিলর বিজেপি থেকে তৃণমূলে আবার ফিরে আসেন। অনেকের মতে, এই ক’মাস আগেও অর্জুন সিং ছিলেন এই পুরসভার চেয়ারম্যান। লোকসভা ভোটে দাঁড়ানোর সময়ে ওই চেয়ারে বসিয়ে গিয়েছিলেন ভাইপো সৌরভ সিংকে। কিন্তু এখন যা সমীকরণ দাঁড়িয়েছে, তাতে বিজেপির পক্ষে ওই এলাকাগুলিতে বোর্ড ধরে রাখা মুশকিল।

আসন্ন এখন আস্থা ভোট। তৃণমূলের দাবি, বিজেপির হাত থেকে খুব শিগ্রহি চলে যাবে বোর্ড এখন শুধু মাত্র কিছু সময়ের অপেক্ষা। শাসক দলের নেতারা আরও বলেন, অর্জুন সিং-এর লোকজন আস্থা ভোটে হারার ভয়েই কাউন্সিলরদের আত্মীয়দের বাড়িতে বোমাবাজি করছে। এর আগেও কল্পনা লহিড়ীর বাড়িতে বোমাবাজি ঘটেছিল। যদিও রবিবার রাতের ঘটনায় সোমবার দুপুর পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি বলেই জানা গিয়েছে পুলিশি সূত্রে।

ভাটপাড়া পুরসভার মোট ওয়ার্ড সংখ্যা ৩৫টি। অর্জুন সিং সাংসদ হওয়ার পর কাউন্সিলর এর পদ থেকে পদত্যাগ করেছেন। মৃত্যু হয়েছে ভীম সিং নামের এক কাউন্সিলরের। একটি ওয়ার্ড দখলে রয়েছে বামেদের। ফলে এই মুহূর্তে বোর্ড গড়তে প্রয়োজন ১৭ জন কাউন্সিলরের সমর্থন। পাঁচজন কাউন্সিলর দল বদল করেননি। তাঁরা তৃণমূলেই রয়ে গিয়েছিলেন। ৬ নভেম্বর ফিরে আসেন ১২জন। ফলে যে সংখ্যা দরকার বোর্ড গড়ার জন্য সেটা হয়ে গিয়েছে বলে আত্মবিশ্বাসী রয়েছে শাসক দল কর্তৃপক্ষ।

Tags
Show More

Related Articles

Back to top button
Close