West Bengal

লকডাউনে ‘বেধড়ক মার’ পুলিশের, মৃত হাওড়ার যুবক।

দুধ কিনতে বেরোনোয় বেধড়ক মার পুলিশের।

পল্লবী : শহরের, রাজ্যের বিভিন্ন জায়গাতেই দেখা যাচ্ছে এই দৃশ্য। লকডাউন চলাকালীন রাস্তায় কেউকে দেখা গেলে সরাসরি লাঠি চালাচ্ছে পুলিশ। তা অবশ্য জনগণের মঙ্গলার্থে। বারংবার বারণ করা সত্ত্বেও বাইরে দেখা যাচ্ছে লোকজনকে। তা আটকাতেই এরূপ পদক্ষেপ। তবে একটি চাঞ্চল্যকর ঘটনা ঘটলো হাওড়ার সাঁকরাইলের বানিপুর এলাকায়। লকডাউনের মধ্যে দুধ কিনতে বেরনোর ‘শাস্তি’। পুলিশের মারে মৃত্যু হল এক যুবকের। ‘যদিও গোটা বিষয়টি ভিত্তিহীন, বাথরুমে পড়ে যাওয়াতেই ওই যুবকের মৃত্যু হয়েছে’ এমনটাই দাবি পুলিশের।

জানা গিয়েছে, হাওড়ার সাঁকরাইলের বাসিন্দা লাল স্বামী নামে বছর ৩১ -এর ওই যুবক। বুধবার সন্ধ্যাবেলা দুধ কিনতে বেড়িয়েছিলেন তিনি। তাঁর স্ত্রীর অভিযোগ, সেই সময় কর্তব্যরত পুলিশ আধিকারিকরা তাঁর পথ আটকায়। এরপর রাস্তায় জটলা তৈরি হতেই পুলিশ লাঠিচার্জ শুরু করে। গুরুতর জখম হন লাল। তড়িঘড়ি তাঁকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিত্‍সকরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করে। যদিও অভিযোগ ভিত্তিহীন বলেই দাবি পুলিশের। এ প্রসঙ্গে হাওড়া সিটি পুলিশের ডিসি সাউথ রাজ মুখোপাধ্যায় বলেন, ‘ওই যুবক অসুস্থ ছিলেন। এরমধ্যে বাথরুমে পড়ে গিয়েছিলেন তাতেই গুরুতম জখম হন। পুলিশ লাঠিচার্জ করেনি।’

পরিস্থিতি যাতে জটিল না হয় তাই আগে লকডাউন ঘোষণা করেছিল রাজ্য সরকারগুলি। পরে কেন্দ্রের তরফে দেশে জারি হয় লকডাউন। পরিবারের স্বার্থে আগামী ২১ দিন সকলকে ঘরে থাকার আবেদন জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

Tags
Show More

Related Articles

Back to top button
Close